আপনার ধনু প্রাচীন রাশির রাশি

  • by

সাগিটারিয়াস, বা ধনু রাশি, রাশি চক্রের চতুর্থ নক্ষত্র মন্ডল এবং এটি একটি অশ্বারোহী ধনুর্ধরের চিহ্ন I লাতিনে সাগিটারিয়াসের অর্থ ‘ধনুর্ধর’ I প্রাচীন জ্যোতিষ রাশিচক্রের ঠিকুজির অধ্যয়নে, আপনি প্রেম, সৌভাগ্য, স্বাস্থ্য এবং আপনার ব্যক্তিত্বের অন্তর্দৃষ্টি অনুসন্ধানের জন্য ধনু রাশির ঠিকুজির পরামর্শ অনুসরণ করুন I   

তবে এটি কি এর শুরুতে এইভাবে পড়া হত?

সাবধান হন! এর জবাব দেওয়ার ফলে অপ্রত্যাশিতভাবে আপনার রাশিফল উন্মুক্ত হবে I আপনি এক ভিন্ন যাত্রায় যাত্রা করবেন যখন আপনি আপনার ঠিকুজি ঠিক পরীক্ষা করছেন যার আপনি তখন অভিপ্রায় করেছিলেন…

আমরা প্রাচীন জ্যোতিষ অন্বেষণ করেছিলাম এবং কন্যা থেকে বৃশ্চিক রাশির ঠিকুজি পরীক্ষা করে, আমরা ধনু রাশির সাথে চলতে থাকি I

নক্ষত্রমন্ডলে ধনু রাশির উৎপত্তি

ধনু রাশি একটি তারার নক্ষত্রমন্ডল হয় যা এক অশ্বারোহী ধনুর্ধরের চিত্রগঠন করে, যাকে প্রায়শই নরঘোটক রূপে দেখানো হয় I ধনুরাশি গঠনকারী তারাগুলি এখানে রয়েছে I তারার এই ছবিতে আপনি কি এক নরঘোটক, একটি ঘোড়া বা তীরন্দাজের অনুরূপ কিছু দেখতে পাচ্ছেন?  

ধনু রাশির তারা লক্ষত্র মণ্ডলের ছবি

এমনকি আমরা যদি ‘ধনু রাশির’ মধ্যে রেখাগুলির সাথে তারাগুলিকে সংযুক্তও করি তবুও অশ্বারোহী তীরন্দাজকে ‘দেখা’ কঠিন I কিন্তু আমরা যত দূর জানি মানব ইতিহাসে এই চিহ্নটি ফিরে যায় I  

রেখাগুলির সাথে সংযুক্ত ধনু রাশির নক্ষত্রমন্ডল  

মিশরের দেন্ডেরা মন্দিরের মধ্যে এখানে লাল রঙে বৃত্তাকার ধনু রাশি সহ 2000 বছরের পুরনো রাশিচক্র রয়েছে I 

মিশরের প্রাচীন দেন্ডেরা রাশিচক্রের মধ্যে ধনু রাশি

জাতীয় ভৌগলিক রাশিচক্রের পোস্টার ধনু রাশিকে যেমন দক্ষিণ গোলার্ধে দেখা গেছে সেইরকম দেখায় I এমনকি ধনু রাশির তারাগুলিকে রেখা সমূহের সাথে সংযুক্ত করার পরেও একজন অশ্বারোহী বা অশ্বকে এই নক্ষত্রমন্ডলের মধ্যে ‘দেখা’ কঠিন I 

জাতীয় ভৌগলিক নক্ষত্রমন্ডলের মানচিত্রের মধ্যে ধনু রাশি

পূর্ববর্তী নক্ষত্রমন্ডলের ন্যায়, অশ্বারোহীর চিত্র তারা নক্ষত্রমন্ডলের নিজের থেকে আসে না I বরং, প্রথম জ্যোতিষশাস্ত্রবিদগণ আগে থেকেই, তারা ছাড়া অন্য কিছুর থেকে অশ্বারোহী তীরন্দাজের সম্পর্কে ভেবেছিলেন I তারপরে তারা এই চিত্রটিকে নক্ষত্রমন্ডলের মধ্যে একটি চিহ্ন হিসাবে স্থাপন করেছিলেন I নীচে একটি বিশিষ্ট ধনুর চিত্র রয়েছে I তবে আমরা যখন আশপাশের নক্ষত্রমন্ডলগুলির সাথে ধনুরাশিটি দেখি আমরা এর অর্থ বুঝতে পারি I 

বিশিষ্ট ধনু রাশির জ্যোতিষ শাস্ত্র নক্ষত্রমণ্ডলের চিত্র

মূল চক্ররাশির কাহিনী

মূল চক্ররাশি সৌভাগ্য, স্বাস্থ্য, প্রেম এবং জন্ম সময় এবং গ্রহগুলির গতি ভিত্তিক ভাগ্যের দিকে আপনার দৈনন্দিন সিদ্ধান্তগুলির মার্গদর্শন করতে কোনো ঠিকুজি ছিল না I প্রাচীনতম মানবজাতি তারাগুলির মধ্যে নক্ষত্রমন্ডলের 12টি চক্ররাশিকে চিহ্নিত করার দ্বারা এই পরিকল্পনাটিকে মনে রেখেছিলেন I আমাদের প্রাচীনতম পূর্বপুরুষগণ চেয়েছিলেন আমরা প্রত্যকে রাতে এই নক্ষত্রমণ্ডলগুলিকে দেখি এবং প্রতিশ্রুতিগুলিকে মনে রাখি I জ্যোতিষশাস্ত্র মূলত: তারাদের মধ্যে এই কাহিনীর অধ্যয়ন এবং জ্ঞান   ছিল I

এই কাহিনীটি কন্যা রাশির মধ্যে কুমারীর বীজের সাথে শুরু হয়েছিল I এটি তুলা রাশির ওজনের দাঁড়িপাল্লার সাথে অব্যাহত ছিল, একটি অনুস্মারক যে আমাদের কর্মের মাত্রা অত্যন্ত হালকা যার আমাদের হালকা কাজের মুক্তির জন্য একটি মূল্য প্রদানের দরকার ছিল I বৃশ্চিক রাশি কন্যা রাশির বীজ এবং বৃশ্চিকের মধ্যে প্রচন্ড সংগ্রামকে দেখিয়েছিল I তাদের দ্বারা শাসন করতে অধিকারের জন্য একটি লড়াই I    

রাশিচক্রের কাহিনীর মধ্যে ধনু রাশি

ধনু রাশি পূর্বাভাষ দেয় কিভাবে এই সংগ্রাম শেষ হবে I আমরা বুঝতে পারি যখন আমরা ধনু রাশিকে চারপাশের নক্ষত্রমণ্ডলগুলির সাথে দেখি I এটি এমন জ্যোতিষশাস্ত্রের প্রসঙ্গ যা ধনুরাশির অর্থকে প্রকাশ করে I

চক্ররাশির মধ্যে ধনু রাশি – বৃশ্চিকের সম্পূর্ণ পরাজয়

ধনু রাশির টানা তীর সরাসরিভাবে বৃশ্চিকের হৃদয়ের দিকে তাক করে I এটি স্পষ্টভাবে দেখায় অশ্বারোহী তীরন্দাজ তার মরণশীল শত্রুকে ধ্বংস করছে I প্রাচীন চক্ররাশিতে এটি ধনুরাশির অর্থ ছিল I

ধনু রাশির আর একটি চক্ররাশির চিত্র I তার তীর বৃশ্চিকের দিকে সরাসরিভাবে তাক করা হয় I   

লিখিত কাহিনীতে ধনুরাশির অধ্যায়

তাঁর শত্রুর উপরে কুমারীর বংশ, যীশুর চূড়ান্ত বিজয় ঘটবে বলে  বাইবেলে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে যেমন ধনুরাশিতে চিত্রিত করা হয়েছে I এখানে এই বিজয়ের লিখিত ভবিষ্যদ্বাণী রয়েছে I     

11পরে আমি দেখিলাম, স্বর্গ খুলিয়া গেল, আর দেখ, শ্বেতবর্ণ একটী অশ্ব; যিনি তাহার উপরে বসিয়া আছেন, তিনি বিশ্বাস্য ও সত্যময় নামে আখ্যাত, এবং তিনি ধর্ম্মশীলতায় বিচার ও যুদ্ধ করেন। 12তাঁহার চক্ষু অগ্নিশিখা, এবং তাঁহার মস্তকে অনেক কিরীট; এবং তাঁহার একটী লিখিত নাম আছে, যাহা তিনি ব্যতীত অন্য কেহ জানে না। 13আর তিনি রক্তে ডুবান বস্ত্র পরিহিত; এবং “ঈশ্বরের বাক্য”—এই নামে আখ্যাত। 14আর স্বর্গস্থ সৈন্যগণ তাঁহার অনুগমন করে, তাহারা শুক্লবর্ণ অশ্বে আরোহী, এবং শ্বেত শুচি মসীনা-বস্ত্র পরিহিত। 15আর তাঁহার মুখ হইতে এক তীক্ষ্ণ তরবারি নির্গত হয়, যেন তদ্দ্বারা তিনি জাতিগণকে আঘাত করেন; আর তিনি লৌহদণ্ড দ্বারা তাহাদিগকে শাসন করিবেন; এবং তিনি সর্ব্বশক্তিমান্‌ ঈশ্বরের প্রচণ্ড ক্রোধরূপ মদিরাকুণ্ড দলন করেন। 16আর তাঁহার পরিচ্ছদে ও ঊরুদেশে এই নাম লেখা আছে,—

“রাজাদের রাজা ও প্রভুদের প্রভু।”

17পরে আমি দেখিলাম, এক জন দূত সূর্য্যমধ্যে দাঁড়াইয়া আছেন; আর তিনি উচ্চ রবে চীৎকার করিয়া, আকাশের মধ্যপথে যে সকল পক্ষী উড়িয়া যাইতেছে, সে সকলকে কহিলেন, আইস, ঈশ্বরের মহাভোজে একত্র হও, 18যেন রাজগণের মাংস, সহস্রপতিবর্গের মাংস, শক্তিমান্‌ লোকদের মাংস, অশ্বগণের ও তদারোহীদের মাংস, এবং স্বাধীন ও দাস, ক্ষুদ্র ও মহান্‌ সকল মনুষ্যের মাংস ভক্ষণ কর।

19পরে আমি দেখিলাম, ঐ অশ্বারোহী ব্যক্তির ও তাঁহার সৈন্যের সহিত যুদ্ধ করিবার জন্য সেই পশু ও পৃথিবীর রাজগণ ও তাহাদের সৈন্যগণ একত্র হইল। 20তাহাতে সেই পশু ধরা পড়িল, এবং যে ভাক্ত ভাববাদী তাহার সাক্ষাতে চিহ্ন-কার্য্য করিয়া পশুর ছাবধারী ও তাহার প্রতিমার ভজনাকারীদের ভ্রান্তি জন্মাইত, সেও তাহার সঙ্গে ধরা পড়িল; তাহারা উভয়ে জীবন্তই প্রজ্বলিত গন্ধকময় অগ্নিহ্রদে নিক্ষিপ্ত হইল। 21আর অবশিষ্ট সকলে সেই অশ্বারোহী ব্যক্তির মুখ হইতে নির্গত তরবারি দ্বারা হত হইল; এবং সমস্ত পক্ষী তাহাদের মাংসে তৃপ্ত হইল।

প্রকাশিত বাক্য 19: 11-21

1পরে আমি স্বর্গ হইতে এক দূতকে নামিয়া আসিতে দেখিলাম, তাঁহার হস্তে অগাধলোকের চাবি এবং বড় এক শৃঙ্খল ছিল। 2তিনি সেই নাগকে ধরিলেন; এ সেই পুরাতন সর্প, এ দিয়াবল [অপবাদক] এবং শয়তান [বিপক্ষ]; তিনি তাহাকে সহস্র বৎসর বদ্ধ রাখিলেন, 3আর তাহাকে অগাধলোকের মধ্যে ফেলিয়া দিয়া সেই স্থানের মুখ বদ্ধ করিয়া মুদ্রাঙ্কিত করিলেন; যেন ঐ সহস্র বৎসর সম্পূর্ণ না হইলে সে জাতিবৃন্দকে আর ভ্রান্ত করিতে না পারে; তৎপরে অল্প কালের নিমিত্ত তাহাকে মুক্ত হইতে হইবে।

প্রকাশিত বাক্য 20:1-3

7সেই সহস্র বৎসর সমাপ্ত হইলে শয়তানকে তাহার কারা হইতে মুক্ত করা যাইবে। 8তাহাতে সে “পৃথিবীর চারি কোণে স্থিত জাতিগণকে, গোগ ও মাগোগকে”, ভ্রান্ত করিয়া যুদ্ধে একত্র করিবার জন্য বাহির হইবে; তাহাদের সংখ্যা সমুদ্রের বালুকার তুল্য। 9তাহারা পৃথিবীর বিস্তার দিয়া আসিয়া পবিত্রগণের শিবির এবং প্রিয় নগরটী ঘেরিল; তখন “স্বর্গ হইতে অগ্নি পড়িয়া তাহাদিগকে গ্রাস করিল।” 10আর তাহাদের ভ্রান্তিজনক দিয়াবল “অগ্নি ও গন্ধকের” হ্রদে নিক্ষিপ্ত হইল, যেখানে ঐ পশু ও ভাক্ত ভাববাদীও আছে; আর তাহারা যুগপর্য্যায়ের যুগে যুগে দিবারাত্র যন্ত্রণা ভোগ করিবে। 

প্রকাশিত বাক্য 20:7-10

প্রাচীন রাশিচক্রের প্রথম চারটি চিহ্ন সমূহ হ’ল: কন্যা, তূলা, বৃশ্চিক এবং ধনু রাশি, যা 12 অধ্যায়ের রাশিচক্রের কাহিনীর মধ্যে একটি জ্যোতিষশাস্ত্র সংক্রান্ত ইউনিটকে গঠন করে যা আসন্ন শাসক এবং তার বিরোধীর উপরে ফোকাস করে I কন্যা রাশি কুমারীর বীজ থেকে তার আগমনের পূর্বাভাস দিয়েছিল I তূলারাশি পূর্বাভাষ দয়েছিল যে আমাদের অপর্যাপ্ত যোগ্যতার একটি মূল্য প্রদানের প্রয়োজন হবে I বৃশ্চিকরাশি সেই মূল্যের প্রকৃতির পূর্বাভাষ করেছিল I ধনুরাশি বৃশিকের হৃদয়ের দিকে সরাসরি তাক করা তীরন্দাজের তীরের সাহায্যে তার চূড়ান্ত বিজয়ের পূর্বাভাষ করেছিল I 

তিনটি চিহ্ন সমস্ত লোকেদের জন্য ছিল, না কেবল তাদের জন্য যারা প্রতিটি নক্ষত্রমণ্ডলের মাসে জন্ম গ্রহণ করেছিল I ধনুরাশি আপনার জন্য এমনকি আপনি যদিও 23 নভেম্বর এবং 21 ডিসেম্বরের মধ্যে জন্মগ্রহণ নাও করে থাকেন I মনু/আদমের সন্তানগণ তাদেরকে তারাদের মধ্যে রেখেছিল যাতে আমরা শত্রুর উপরে চূড়ান্ত বিজয়কে জানতে পারি এবং আমাদের আনুগত্য সেই অনুসারে বাছতে পারি I যীশুর প্রথম আগমন কন্যা, তূলা এবং বৃশ্চিকরাশিকে পরিপূর্ণ করেছিল I ধনুরাশির পরিপূর্ণতা দ্বিতীয় আগমনের অপেক্ষা করছে I কিন্তু প্রথমত তিনটি চিহ্ন সম্পাদন  সম্পূর্ণ হওয়ার সাথে সাথে, আমাদের কাছে বিশ্বাস করার একটি কারণ আছে যে ধনুরাশির চিহ্ন অনুরূপভাবে তার পরিপূর্ণতা পেয়ে যাবে I  

প্রাচীন ধনুরাশির ঠিকুজী 

ঠিকুজী গ্রীক ‘হোরো’ (মুহূর্ত) থেকে এসেছে এবং বাইবেল আমাদের জন্য ধনুরাশির ‘মুহূর্ত’ সহ এই মুহুর্তগুলিকে চিহ্নিত করে I ধনুরাশির হোরোর  অধ্যয়ন হ’ল

36কিন্তু সেই দিনের ও সেই দণ্ডের তত্ত্ব কেহই জানে না, স্বর্গের দূতগণও জানেন না, পুত্রও জানেন না, কেবল পিতা জানেন।

44এই জন্য তোমরাও প্রস্তুত থাক, কেননা যে দণ্ড তোমরা মনে করিবে না, সেই দণ্ডে মনুষ্যপুত্র আসিবেন।   

মথি 24:36, 44

যীশু আমাদের বলেন যে ঈশ্বর ব্যতীত তার প্রত্যাবর্তন এবং তার শত্রুর সম্পূর্ণ পরাজয়ের সেই সঠিক মুহূর্তটিকে (হোরো) কেউ জানে না I যাইহোক, সেই মুহুর্তের নিকটতাকে ইঙ্গিত দেয় এমন কিছু সূত্র রয়েছে I এটি বলে যে আমরা সম্ভবত এটির জন্য প্রস্তুত হতে যাচ্ছি না I  

আপনার ধনুরাশির অধ্যয়ন

আপনি এবং আমি আজকের দিনে নিম্নলিখিত মার্গদর্শনের সাথে ধনুরাশির ঠিকুজীর অধ্যয়নকে প্রয়োগ করতে পারি I

ধনুরাশি আমাদের বলে যে খ্রীষ্টের ফিরে আসার মুহুর্তে এবং শয়তানের সম্পূর্ণ পরাজয়ের আগে আপনি অনেক বিঘ্নের মুখোমুখি হবেন I আসলে আপনি যদি এটিকে পুনর্ণবীকরণের মাধ্যমে আপনার মনকে রুপান্তরিত না করেন তবে আপনি এই বিশ্বের মানদণ্ডের সাথে অনুরূপ হবেন I তখন সেই মুহূর্তটি আপনাকে অপ্রত্যাশিতভাবে আঘাত করবে এবং আপনি তাঁর প্রকাশের সময় তাঁর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হবেন না I সুতরাং আপনি যদি এই মুহূর্তটি হারিয়ে ফেলার সব ভয়াবহ পরিণতি ঘটাতে না চান তবে নিজেকে প্রস্তুত করার জন্য প্রতিদিন আপনাকে একটি সচেতন সিদ্ধান্ত নিতে হবে I আপনি যশস্বী ব্যক্তি বা রেডিওর ধারাবাহিক নাটকের পরচর্চা এবং চক্রান্তগুলিকে মুর্খতার সাথে অনুসরণ করছেন কিনা যাচাই করুন I যদি তা হয় তা সম্ভবত আপনার মনের দাসত্ব, এখনই নিবিড় সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার মতন বৈশিষ্ট্যের ফলস্বরূপ হবে এবং অবশ্যই অন্যরা বেশিরভাগের সাথে তাঁর ফিরে আসার মুহূর্তটি মিস করবেন I  

আপনার ব্যক্তিত্বের কাছে এর শক্তি এবং দুর্বলতা উভয়ই আছে, কিন্তু শত্রু, যে আপনাকে বিক্ষিপ্ত রাখতে চান, আপনাকে আপনার দুর্বল বৈশিষ্ট্যগুলিকে আক্রমণ করে I এটি অলস পরচর্চা, পর্নোগ্রাফি, লোভ বা সোস্যাল মিডিয়ায় আপনার সময় নষ্ট করা হতে পারে I আপনি যে প্রলোভনগুলিতে পড়বেন তা তিনি   জানেন I সুতরাং সাহায্য এবং মার্গদর্শনের জন্য প্রার্থনা করুন যাতে আপনি সরল এবং সংকীর্ণ পথে চলতে পারেন এবং এই মুহুর্তটির জন্য প্রস্তুত হন I যারা এই মুহূর্তটি মিস করতে চান না এমন আরও কয়েকজনকে অনুসন্ধান করুন এবং একসাথে আপনি প্রতিদিন একে অপরকে সহায়তা করতে পারেন যাতে এটি অপ্রত্যাশিতভাবে আপনার উপরে না আসে I   

রাশিচক্রের কাহিনীর মাধ্যমে আরও এবং ধনুরাশির আরও গভীরে

পরবর্তী চারটি রাশিচক্রের চিহ্নগুলি একটি জ্যোতিষশাস্ত্রের ইউনিটকেও গঠন করে, প্রকাশ করে কিভাবে আসন্ন একজনের কার্য কর্কট রাশি দিয়ে শুরু করে, আমাদের প্রভাবিত করে I কন্যা রাশি দিয়ে এর শুরুতে কাহিনীটিকে শুরু করুন, বা ভিত্তিটিকে এখানে শিখুন I 

ধনুরাশির লিখিত নথির গভীরে যেতে গেলে দেখুন

একটি বই হিসাবে রাশিচক্র অধ্যায়গুলির পিডিএফ ডাউনলোড করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *